Ads
img

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতায় আসার পর থেকেই দেশটিতে নারী স্বাধীনতার বাতাস বইতে শুরু করেছে।

২০১৮ সালটি মূলত সৌদি নারীদের অবাধ স্বাধীনতার বছর বললেও ভুল হবে না।

এ বছরের জুলাইয়ে কট্টরপন্থী মুসলিম দেশটিতে নারীরা গাড়ি চালানোর অনুমতি পায়। এর পর দেয়া হল স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার সুযোগ।

এবার পেল কনসার্টে অংশ নেয়ার সুযোগ। চরম রক্ষণশীল বলে পরিচিত সৌদি আরবে এই প্রথমবারের মতো কোনো মিউজিক কনসার্টে একসঙ্গে নাচলেন পুরুষ ও নারীরা।

১৯৩২ সালে রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পর থেকে দেশটিতে কঠোর শরিয়া আইন চলছে। এই আইনের কারণে সৌদি নারীদের চলাফেরার স্বাধীনতা অনেকটাই সীমাবদ্ধ।

সম্প্রতি ফরাসি ডিস্কো জকি ডেভিড গুয়েত্তার একটি কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছিল সেখানে। সেখানে মঞ্চের আশপাশে ছিল তরুণ-তরুণীদের ভিড়। ডেভিডের গানের সুরে একসঙ্গে নাচলেন তারা।

সৌদির ছেলেমেয়েদের একসঙ্গে নাচের বিরল ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িলে পড়লে মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়ে যায়। তবে বিধিনিষেধের বেড়াজাল ভেঙে বেরিয়ে আসার জন্য অগণিত মানুষ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাদের।

দেশটিতে মেয়েদের যে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি নিতে হয়। এর সঙ্গে ছিল গাড়ি চালানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা। তবে সম্প্রতি এসব নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়া হয়।

বাদশাহ আব্দুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের কিছু পদক্ষেপে সৌদি সমাজের এ পরিবর্তনটা মূলত দৃশ্যমান হয়েছে। তিনি সৌদি নারীদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ সম্প্রসারণের পাশাপাশি তাদের সমান ভোটাধিকার দিয়েছেন।

নারীদের ভোটাধিকার দেয়ার পাশাপাশি ২০১১ সালেই ১৫০ সদস্যের সুরা কাউন্সিলে প্রথমবারের মতো নারীদের যুক্ত করার ঘোষণা দেন বাদশাহ আব্দুল্লাহ। তারই পদাঙ্ক অনুসরণ করছে তার ছেলে মো. বিন সালমান।

এই বিভাগের আরও খবর