Ads
img

 শনিবারই আয়োজকরা জানিয়েছিলেন, আঁটসাট নিরাপত্তা টপকে অলিম্পিক গেমস ভিলেজে ঢুকে পড়েছে মারণ করোনা ভাইরাস। একজনের শরীরে মিলেছে কোভিড-১৯-এর হদিশ। তাঁকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই নিয়ে আলোচনার রেশ কাটতে না কাটতে ফের দুঃসংবাদ। গেমস ভিলেজে (Olympic Village) থাকা দুই অ্যাথলিট এবার করোনা পজিটিভ।

মাঝে আর দিন পাঁচেক। তারপরই ২৩ জুলাই থেকে শুরু টোকিও অলিম্পিক (Tokyo Olympic)। কিন্তু তার আগেই গেমস ভিলেজে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে সংক্রমণ। এই প্রথম সেখানে দুই অ্যাথলিটের শরীরে মিলল করোনা ভাইরাসের (Corona Virus) খোঁজ। রবিবারই এ খবর নিশ্চিত করা হয়েছে আয়োজকদের তরফে। গেমস ভিলেজের বাইরে আরও একজন আক্রান্ত বলেও শোনা যাচ্ছে। শনিবারই গেমস ভিলেজে প্রথম করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর সামনে আসার পর বাড়ে উদ্বেগ। যদিও জানা যায়, তিনি কোনও প্রতিযোগী নন। কিন্তু এবার অ্যাথলিটরাও আক্রান্ত হলেন। তাঁদের পরিচয় এখনও জানানো হয়নি। ফলে অনেকেই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন, অতিমারী পরিস্থিতিতে কি এতটা ঝুঁকি নিয়ে গেমস আয়োজন করা উচিত হচ্ছে?

প্রতিবারের মতো এবারও গেমস ভিলেজেই থাকছেন সাড়ে ছ’হাজারেরও বেশি প্রতিযোগী। অতিমারীর কারণে অন্যান্য বারের থেকে এবার কড়াকড়িও বেশি। প্রতিযোগীদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে মাস্ক পরা, দূরত্ববিধি মেনে চলা, সঙ্গম না করার মতো নানা বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। তবে আয়োজকরা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই জানিয়েছেন, চিন্তার কোনও কারণ নেই। সংক্রমণ রুখতে সমস্ত ব্যবস্থাই গ্রহণ করা হয়েছে। মুখ্য আয়োজক সেইকো হাসিমতো বলেন, “কোভিড যাতে না ছড়ায়, সে ব্যাপারে আমরা সদা সতর্ক। আর একান্তই সংক্রমণ ঢুকে পড়লে আমাদের বিকল্প প্ল্যানও ভাবা আছে।” এদিকে, জাপান সরকার বলে দিয়েছে, কোনও প্রতিযোগী করোনা রোগীর সংস্পর্শে এলেও ইভেন্টে অংশ নিতে পারবেন। সেক্ষেত্রে তাঁর করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসতে হবে।

এই বিভাগের আরও খবর