Ads
img

বরিশালের হিজলা উপজেলার কোড়ালিয়া গ্রামে বড় ভাই ও ভাবিকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে। গতকাল শনিবার রাত আটটার দিকে হামলার পর গুরুতর আহত অবস্থায় দুলাল বাবুর্চি ও তাঁর স্ত্রী নিলুফা বেগমকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুলালের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁর বাঁ পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

অভিযুক্ত নুরু বাবুর্চি কোড়ালিয়া গ্রামের হাসেম বাবুর্চির ছেলে। নুরুর বিরুদ্ধে থানায় ডাকাতিসহ বিভিন্ন অভিযোগে একাধিক মামলা আছে। সম্প্রতি তিনি একটি অস্ত্র মামলায় ১৪ বছর সাজা খেটে কারাগার থেকে মুক্ত হয়েছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। 

স্থানীয় বাসিন্দাদের ভাষ্য, গতকাল রাত আটটার দিকে দুলাল মোটরসাইকেলে করে উপজেলার কাউরিয়া বাজার থেকে নিজের বাড়িতে যাচ্ছিলেন। বাড়িতে ঢোকার সময় ওত পেতে থাকা তাঁর ছোট ভাই নুরু ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করেন। এতে দুলাল মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এরপর তাঁকে এলোপাতাড়ি কোপানো হয়। তাঁর বাঁ পা কুপিয়ে প্রায় বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। এ সময় দুলালের স্ত্রী নিলুফা স্বামীকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তাঁকেও কুপিয়ে জখম করা হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় দুজনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অসীম কুমার সিকদার বলেন, নুরু দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী। সম্প্রতি তিনি কারাগার থেকে মুক্ত হন। এর আগে নুরুর হামলায় গ্রামের অন্তত ২৫ জন আহত হন। তাঁকে আটকের চেষ্টা চলছে।

জিরোআওয়ার২৪/এমএ

এই বিভাগের আরও খবর