Ads
img

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের জন্য ফিটনেস পরীক্ষায় দুর্দান্ত সাকিবকেই দেখা গেল। বিপ টেস্টে তিনি সবচেয়ে বেশি নম্বর পেয়েছেন। বিসিবি সূত্রে জানা গেছে সাকিবের নম্বর ১৩.৭।

গত দুই দিনের বিপ টেস্টে সবচেয়ে বেশি নম্বর ১৩.৬ পেয়েছিলেন কুমিল্লার পেসার মেহেদী হাসান। সাকিব যেন সেটি ছাপিয়ে যাওয়ার প্রতিজ্ঞা নিয়েই আজ ফিটনেস পরীক্ষায় এসেছিলেন। পরীক্ষা শেষ করলেন মেহেদীকে পেছনে ফেলেই।

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ড্রাফটে নাম তুলতে হলে ফিটনেস পরীক্ষায় অবশ্যই পাস করতে হবে। বিসিবি একটা মানদণ্ডও বেঁধে দিয়েছে—১১। অর্থাৎ, বিপ টেস্টে ১১ তুলতে পারলেই কেবল বঙ্গবন্ধু টুর্নামেন্টে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবেন ক্রিকেটাররা। নিষেধাজ্ঞার কারণে গত এক বছর ক্রিকেটের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক ছিল না সাকিবের। তবে এই সময় নিজের ফিটনেসের যত্ন যে তিনি নিয়েছেন, আজ বিপ টেস্টে সর্বোচ্চ স্কোর করে সেটিই প্রমাণ করলেন সাকিব। সেই সঙ্গে জানিয়ে রাখলেন, ক্রিকেটে ফিরতে পুরোপুরি প্রস্তুত তিনি।

সাকিবের বিপ টেস্ট নিয়েছেন হাইপারফরম্যান্স ইউনিট ও জাতীয় ক্রিকেট দলের ট্রেনার নিক লি। পরীক্ষা শেষে সাকিবকে নিয়ে সন্তুষ্টিই ছিল লির কণ্ঠে, ‘সাকিব ভালো করেছে। সবকিছুই ঠিকঠাক ছিল। একদম ঠিক ছিল।’

সাকিবের ফিটনেস পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল ৯ নভেম্বর। কিন্তু অন্য ক্রিকেটারদের করোনা পরীক্ষা করা ছিল না বলে জনসমাগম এড়াতে সেদিন পরীক্ষা দেননি। প্রথম দিনের ফিটনেস পরীক্ষায় ২১ বছর বয়সী বাঁহাতি স্পিনার নিহাদুজ্জামান সর্বোচ্চ ১৩.৪ পয়েন্ট পেয়েছিলেন। রবিউল ইসলাম ও পিনাক ঘোষ, দুজনই ১৩ পয়েন্ট পেয়ে ছিলেন দ্বিতীয় সেরা। দ্বিতীয় দিন মেহেদী হাসান ১৩.৬ পয়েন্ট তুলেন। রায়হান উদ্দিন ১৩.২ পেয়ে মেহেদীর কাছাকাছি এসেছিলেন।

জিরোআওয়ার২৪/এমএ

এই বিভাগের আরও খবর