Ads
img

চীনের অন্যতম প্রধান করোনাভাইরাসের একটি টিকা মানবশরীরের পরীক্ষায় নিরাপদ ফল দেখিয়েছে। গবেষকেরা বলেছেন, মানুষের ওপর প্রাথমিক ও মধ্যপর্যায়ের সম্মিলিত পরীক্ষায় প্রতিরোধী প্রতিক্রিয়াও দেখিয়েছে বিবিআইবিপি-করভি নামের টিকাটি। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

চীনের বিবিআইবিপি-করভি টিকাটি তৈরি করছে বেইজিং ইনস্টিটিউট অব বায়োলজিক্যাল প্রোডাক্টসের অধীনে থাকা চায়না ন্যাশনাল বায়োটেক গ্রুপ (সিএনবিজি)।

টিকাটি ইতিমধ্যে চীনে জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পেয়েছে। টিকাটি জরুরি কর্মসূচির অধীনে দেশটির গুরুত্বপূর্ণ কর্মী ও সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা লোকজনকে দেওয়া হচ্ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী কমপক্ষে ১০টি করোনাভাইরাস টিকা পরীক্ষার তৃতীয় ধাপে রয়েছে। এর মধ্যে সিএনবিজির টিকা প্রকল্প অন্যতম। এ নিয়ে মোট চারটি চীনা টিকা তৃতীয় ধাপে রয়েছে।

চীনের বিবিআইবিপি-করভি টিকাটি দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষায় মারাত্মক কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায় নি। এতে সামান্য সর্দি, হালকা জ্বর বা ইনজেকশন দেওয়ার জায়গায় সামান্য ব্যথা দেখা যায়।

গত বৃহস্পতিবার মেডিকেল জার্নাল ‘ল্যানসেট’–এ টিকাটির গবেষণাসংক্রান্ত তথ্য প্রকাশ করেছে।

গত ২৯ এপ্রিল থেকে ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের যৌথ পরীক্ষায় ৬০০ জনের ওপর টিকাটি পরীক্ষা চালানো হয়। বিভিন্ন দলের মানুষের ওপর তিনটি পৃথক ডোজে টিকাটি দেওয়া হয়।

এতে সবার শরীরে অ্যান্টিবডি (প্রতিরোধী ক্ষমতা) তৈরি হতে দেখা গেছে। বয়স্কদের শরীরেও এতে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়। তবে ৬০ বছরের বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে অ্যান্টিবডি স্তর কম ও দেরিতে শুরু হয়।

সিএনবিজির তৈরি বিবিআইবিপি-করভি টিকার আরেকটি সংস্করণ চীনের বাইরে পরীক্ষা চালানো হচ্ছে। ওই টিকাও চীনের জরুরি টিকা কর্মসূচিতে ব্যবহৃত হচ্ছে।

সিএনবিজির একজন নির্বাহী গত মাসে বলেছিলেন, এই দুটি টিকা সাধারণ মানুষের ব্যবহারের জন্য শর্তাধীন অনুমোদন পেতে পারে।

গত আগস্ট মাসে এক গবেষণা নিবন্ধে বলা হয়, সিএনবিজির অন্য টিকাটি দ্বিতীয় ধাপে মারাত্মক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই অ্যান্টিবডি তৈরি করেছিল।

জিরোআওয়ার২৪/এমএ

এই বিভাগের আরও খবর