Ads
img

প্রায় সাত মাস পর খুলছে সিনেমা হল। আগামীকাল শুক্রবার ১৬ অক্টোবর থেকে হলগুলোতে সিনেমা প্রদর্শনীর অনুমতি দিয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়। তবে অনুমতি মিললেও আশানুরূপ দর্শক না হওয়ার আশঙ্কায় ছবি মুক্তি দিতে চান না প্রযোজকেরা। আর নতুন ছবি না হলে অনেক মালিকই হল খুলবেন না।

গতকাল বুধবার তথ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. সাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে সিনেমা হলের আসনসংখ্যা কমপক্ষে অর্ধেক খালি রাখার শর্তে এ অনুমতি দেওয়া হয়েছে।’ ১৮ মার্চ থেকে সিনেমা হল বন্ধের সরকারি নির্দেশনা জারি হয়েছিল। সেদিন থেকে সারা দেশের সব সিনেমা হল বন্ধ আছে।

কয়েক মাস ধরেই চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা সরকারের কাছে আবেদন করে আসছেন সিনেমা হল খোলার জন্য। হল খোলার অনুমতি মিললেও সিনেমা প্রদর্শনীর জন্য কতটা প্রস্তুত হলমালিকেরা কিংবা সিনেমা মুক্তি দিতে প্রযোজকেরা কতটা আগ্রহী, এ প্রশ্ন এখন চলচ্চিত্রাঙ্গনে।

২২টির বেশি ছবি সেন্সর সনদ পেলেও শুক্রবার নতুন ছবির অভাবে খুলছে না অনেক সিনেমা হল। প্রযোজক পরিবেশক সমিতি সূত্র জানিয়েছে, ১৬ অক্টোবর মুক্তির জন্য আবেদন করা একমাত্র ছবি সাহসী হিরো আলম। পরের দুই সপ্তাহ ২৩ ও ৩০ অক্টোবর নতুন ছবি মুক্তির জন্য একটিও আবেদন পড়েনি। নতুন ছবি না হলে রাজধানী ঢাকার অনেক সিনেমা হলই খুলতে নারাজ হলমালিকেরা।

মধুমতি হলের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন বলেন, ‘নতুন ছবি মুক্তির কোনো খবর নেই। এই পরিস্থিতিতে প্রযোজকেরা ভালো মানের নতুন ছবি মুক্তি না দিলে হল খুলতে চাচ্ছি না। কারণ, এ অবস্থায় হল খুললে লোকসান আরও বেড়ে যাবে।’

রাজধানীতে শ্যামলী সিনেপ্লেক্স, বলাকাসহ বেশ কিছু সিনেমা হল খুলছে না আগামীকাল। বলাকা সিনেমা হলের ব্যবস্থাপক এস এম শাহিন বলেন, ‘হল খোলার সিদ্ধান্ত হয়নি এখনো। আগে দেখব, তারপরে হল খুলব। হল খুলতে এই মাস লেগে যেতে পারে।’ শ্যামলী সিনেপ্লেক্সের মালিক মো. হাফিজ বলেন, ‘অনুমতির কথা শুনেছি। এখন দেখব নতুন ভালো কোনো ছবি আসে কি না। তারপরই সিদ্ধান্ত নেব।’ রাজধানীর আনন্দ, চিত্রামহল, গীতসহ বেশ কয়েকটি সিনেমা হল খুলছে বলে জানা গেছে।

যমুনা ব্লকবাস্টার সিনেমাসে সাতটি স্ক্রিনের মধ্যে একটি স্ক্রিনে আগামীকাল থেকেই সিনেমা দেখানো হবে। তবে কোন সিনেমা দেখানো হবে, এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে কাল থেকে খুলছে না স্টার সিনেপ্লেক্স। এটি চালু হবে ২৩ অক্টোবর। ধানমন্ডি, মহাখালী ও বসুন্ধরা সিটি—সব শাখাই একই দিনে খুলে দেওয়া হবে। প্রতিষ্ঠানটির জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘হঠাৎ হল খোলার সিদ্ধান্ত এল। আমাদের প্রায় ৩০০ কর্মচারী গ্রামে চলে গেছেন। এখন তাঁরা ঢাকায় ফিরবেন। এরপর তাঁদের সবাইকে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করানো হবে। শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিনেপ্লেক্স খোলা হবে।’

ঢাকার বাইরেও কিছু হল খুলছে, কিছু খুলছে না। যশোরের মণিহার সিনেমা হলের ব্যবস্থাপক তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, ‘শুক্রবার হুট করে হল খোলার সিদ্ধান্ত নিলাম না। হল খোলার সংবাদটাও তো দর্শকদের জানতে হবে। হাতে সময় অল্প। তবে ২৩ অক্টোবর খোলার বিষয়টি মোটামুটি চূড়ান্ত।’

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের সাথী সিনেমা হল কালই খুলছে। সাহসী হিরো আলম ছবিটি প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে হলটি খোলা হচ্ছে বলে জানান হলমালিক ও প্রদর্শক সমিতির সহসভাপতি মিয়া আলাউদ্দিন।

হল খোলার জন্য বেশ সোচ্চার ছিলেন বেশ কিছু প্রযোজকও। কিন্তু হল খোলার পর নতুন সিনেমা মুক্তিতে তাঁদের তেমন আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। এতে চলচ্চিত্রাঙ্গনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে।

শাকিব খান ও বুবলী অভিনীত বিদ্রোহী ছবিটি মুক্তির জন্য প্রস্তুত। কিন্তু এখনই মুক্তি দিতে চান না ছবির প্রযোজক সেলিম খান। ১৬ অক্টোবর তাঁদের প্রযোজিত পুরোনো ছবি শাহেনশাহ মুক্তি দিতে চান। এই প্রযোজক বলেন, ‘নতুন ছবি বিদ্রোহী মুক্তি দেব না। আরও সময় নেব। পরিস্থিতি বুঝতে চাই। তারপর মুক্তির সিদ্ধান্ত নেব। তা ছাড়া দর্শকের হলে ফেরার আগ্রহটাও একটু দেখতে চাই।’

সিনেমা হল বন্ধ হওয়ার আগেই মুক্তির তারিখ নির্ধারিত হয়েছিল বিশ্ব সুন্দরী ছবির। কিন্তু করোনায় আটকে যায়। হল খুললেও এখন ছবিটি খুব শিগগির রুপালি পর্দায় আসছে না। ছবির নির্বাহী প্রযোজক অজয় কুণ্ডু বলেন, ‘হল খোলার অনুমতিকে স্বাগত জানাচ্ছি। কিন্তু বিশ্ব সুন্দরী এখন মুক্তি দেব না। সারা দেশে হল খোলার অবস্থা, দর্শকের অবস্থা বুঝে তারপর মুক্তির সিদ্ধান্ত নেব।’

জিরোআওয়ার২৪/এমএ

এই বিভাগের আরও খবর