Ads
img

সমাজ ও অর্থনীতির দুর্বলতাগুলো বেশ ভালোভাবে তুলে ধরেছে বলে মন্তব্য করেছেন শান্তিতে নোবেলজয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। তিনি বলেছেন, সংক্রমণ ঠেকাতে জারি লকডাউন বিশেষ করে অর্থনীতির অনানুষ্ঠানিক খাতের মানুষগুলোকে মারাত্মক এক সংকটের মুখে ঠেলে দিয়েছে।

ফেয়ার শেয়ার ফর চিলড্রেন নামে একটি শিশু সম্মেলনে বুধবার তিনি এসব মন্তব্য করেন বলে ভারতের দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়ার গতকাল এক অনলাইন প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

‘ফুড সিকিউরিটি ডিউরিং কভিড-১৯ : এন্ডিং চাইল্ড হাঙ্গার অ্যান্ড স্টপিং দ্য ভাইরাস ফর গুড’ শিরোনামে একটি সেশনে দেওয়া বক্তব্যে নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস বলেন, একটা বিষয় আমাদের তুলে ধরতে হবে, যে যেখানেই জন্মগ্রহণ করুক না কেন, সেখানে যেন তার উপার্জন সম্ভব হয়। ড. ইউনূস বিশেষ করে ভারতের কথা উল্লেখ করে বলেন, লকডাউনে কীভাবে ভারতের পরিযায়ী শ্রমিকরা কাজ হারিয়ে হেঁটে হেঁটে তাদের বাড়িতে ফিরতে বাধ্য হয়েছেন তা তো আমরা দেখতে পেয়েছি। তিনি বলেন, কভিড আমাদের সমাজ ও অর্থনীতির দুর্বলতাগুলোকে দেখিয়ে দিয়েছে। দিনমজুরদের বিশাল স্থানান্তরের ঘটনা ঘটেছে। আয়শূন্য হয়েছেন তারা। নিজেরা খেতে পারেনি। বিশেষ করে ভারতে কর্মহীন এসব মানুষ মাইলের পর মাইল হেঁটে বাড়ি ফিরেছে, কারণ কোনো আয় ছিল না তাদের। তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের পুষ্টির দিকে মনোযোগ দিতে হবে। তবে শুধু শিশুদের প্রতি দৃষ্টি নিবদ্ধ করলেও সমাধান সম্ভব নয়। শিশু এবং মা একসঙ্গে থাকে। তাই মা যদি ক্ষুধার্ত হয় তবে শিশুটিও ক্ষুধার্ত থাকে। তাই আমাদের দারিদ্র্যপীড়িত পরিবারগুলোকে খাবার দিতে হবে। পরিবার সম্পর্কে চিন্তা করতে হবে আমাদের।

এই বিভাগের আরও খবর